শিরোনাম

South east bank ad

তেঁতুলিয়ায় পর্যটকদের নিরাপত্তায় কাজ করছে ট্যুরিস্ট পুলিশ

 প্রকাশ: ৩১ মে ২০২১, ০৮:৪১ অপরাহ্ন   |   ট্যুরিস্ট পুলিশ

তেঁতুলিয়ায় পর্যটকদের নিরাপত্তায় কাজ করছে ট্যুরিস্ট পুলিশ

দেশের পর্যটন কেন্দ্র ও পর্যটকদের নিরাপত্তায় অন্যান্য জেলার মতো পঞ্চগড়েও চালু হয়েছে ট্যুরিস্ট পুলিশের কার্যক্রম। এখন হতে পর্যটকরা পঞ্চগড়ে ভ্রমণে আসলে নিরাপত্তা নিতে পারবেন ট্যুরিস্ট পুলিশের। দেশের অন্যতম পর্যটন অঞ্চল এখন হিমালয়কন্যা পঞ্চগড়। সীমান্তঘেষা এ জেলাটিতে রয়েছে চোখ জুড়ানো নানান দর্শনীয় স্থানের সমাহার। রয়েছে ঐতিহাসিক স্থাপনা। আর সীমান্ত জুড়ে রয়েছে প্রাকৃতিক নয়নাভিরাম সৌন্দর্য। বিশেষ করে দেশের একমাত্র, যেখানে দাঁড়িয়ে উপভোগ করা যায় নেপালের আকাশচুম্বী হিমালয়-কাঞ্চনজঙ্ঘা। রয়েছে শেষ সীমান্তের জিরো পয়েন্ট। এ সৌন্দর্য উপভোগ করতে সারা বছরই হাজার হাজার দেশি-বিদেশী পর্যটকদের আগমন ঘটে এখানে। পর্যটন শিল্পের অত্যাধিক গুরুত্ব বহন করায় ট্যুরিস্ট পুলিশের কার্যক্রম শুরু হওয়ায় পর্যটকদের নিরাপত্তার বিষয়ে এসেছে স্বস্তি।

পর্যটন শিল্পের জন্য নানাদিক থেকেই উত্তরের এ জেলাটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। পর্যটন শিল্প অঞ্চল ঘোষণার দাবি এ অঞ্চলের সর্বসাধারণের। দেশের সংসদীয় আসনের এক থেকে শুরু হয়েছে কার্যক্রম। প্রতি বছর নেপালের মাউন্ট এভারেস্ট তথা হিমালয় ও কাঞ্চনজঙ্ঘা দেখতে পারি জমায় লক্ষ লক্ষ ভ্রমণ পিপাসু পর্যটক। সেই হিমালয়-কাঞ্চনজঙ্ঘা কাছ থেকে দেখা মেলে একমাত্র এ জেলায় আসলে। শরৎ থেকে শীত ঋতুতে পরিস্কার আকাশে সুস্পষ্ট দেখা যায় এই হিমালয়-কাঞ্চনজঙ্ঘা। মাত্র ৫৮ কিলোমিটার দূরেই এ পর্বত দুটি।
এখানে রয়েছে দেশের অন্যতম চতুর্দেশীয় স্থলবন্দর ও ইমিগ্রেশন। এ ইমিগ্রেশন সুবিধায় যাওয়া যায় ভারত, নেপাল, ভুটান ও চীনের মতো চারটি দেশে। রয়েছে বিশাল জিরোপয়েন্ট। ইংরেজ আমলের স্থাপনা ডাকবাংলো। ৩০ হাজার শ্রমিকের জীবন-জীবিকার প্রবাহিত নদী মহানন্দা, সবুজ চা বাগান, আনন্দধারা পার্ক, মহারাজা দিঘী, দক্ষিণ এশিয়ার প্রতœতত্বের দূর্গনগরী, রক্স মিউজিয়াম, বার আউলিয়া মাজার, শাহী মসজিদ, ইমাম বাড়া, বদেশ্বরী মন্দির, গোলকধাম মন্দির, চীন-মৈত্রী সেতুসহ আরো দর্শনীয় স্থান। পর্যটন শিল্পের উপর গুরুত্ব দিয়ে পর্যটকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সরকার দেশের প্রধান প্রধান পর্যটন স্পটগুলোতে বাড়াচ্ছেন ট্যুরিস্ট পুলিশ।





BBS cable ad